মৌলভীবাজারে ফুল চাষাবাদ সম্ভাবনাময়, নেই উদ্যোক্তা

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৭-১২-০৭ ১১:৩২:১৪

ওমর ফারুক নাঈম, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :: প্রকৃতিমুখর মৌলভীবাজারে ফুলের ব্যাপক চাহিদা থাকলেও নেই বাণিজ্যিক চাষাবাদ। ফুল চাষের জন্য জেলার মাটি ও জলবায়ু উপযোগী থাকলেও রয়েছে সুষ্ঠ পরিকল্পনার অভাব। বাজারে ফুলের চাহিদা মেঠাতে ফুল ব্যবসায়ীরা দ্বারস্থ হচ্ছেন রাজধানী সহ অন্যান্য জেলায়। তবে কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর বলছে, ফুল চাষে উদ্যোক্তার অভাবেই নেয়া যাচ্ছেনা কোনও কর্মসূচি।

ফুল শ্রদ্ধা, ভালবাসা, বন্ধুত্ব ও মননশীলতার প্রতীক। জন্মদিন, বিবাহ, গৃহসজ্জা, সামাজিক, সাংস্কৃতিক কিংবা রাজনৈতিক সব আনুষ্ঠানিকতায় ফুলের প্রয়োজন জনপ্রিয় ও সৌন্দর্যমন্ডিত। ফুলের এই ব্যবহারের কারণে ফুল এখন অর্থকরী ফসল। মৌলভীবাজারে রয়েছে ফুলের ব্যাপক চাহিদা। এ অঞ্চলের মাটি ও জলবায়ু ফুল চাষের জন্য উপযোগী। ফুলের দোকানগুলোতে ফুল কিনতে প্রতিনিয়তই ভিড় জমান ফুলপ্রেমীরা।

মৌলভীবাজারের শাহমোস্তফা রোডে উর্মি পুষ্পালয়ে ফুল কিনতে আসা শিক্ষার্থী সাইফুল্লাহ বলেন, বন্ধুর জন্মদিনে যাব তাই ফুল কিনতে এসিছি। জন্মদিনে ফুল না দিলে কেমন শূন্য লাগে। তাছাড়া ছোট-বড় সবার কাছেই ফুল প্রিয়। আরেকটি দোকানে আসা কলেজ ছাত্র হাসান বলেন, বোনের বিয়ে ঠিক হয়েছে তাই এখানে এসেছি ফুলের অর্ডার দিতে। বিয়েতে প্রায় বিভিন্ন জাতের ৫হাজার ফুলের প্রয়োজন। শাহ মোস্তফা পুষ্পালয়ের স্বত্বাধীকারী ফয়সল আহমদ বলেন, আমার দোকানে সব সময় বিভিন্ন অনুষ্ঠানের ফুল কিনতে ক্রেতারা ভিড় জমান। আমার চাহিদা মত সরবারহ করতে পারিনা।

সময়ের চাহিদার আলোকে মৌলভীবাজারে ফুলের বাজার ক্রমাগতভাবে বেড়েই চলেছে। বিভিন্ন দিবস ও অনুষ্ঠানের সময় ব্যাপক চাহিদা থাকায় ফুলের ঘাটতি পড়ে। এ সময় ফুলের দামও বেশি থাকে। এখানের বাজারে বিশেষ করে গোলাপ, গাঁদা, চামেলী, জুঁই, শেফালি, রজনীগন্ধা, গন্ধরাজ, গাডিওলাসসহ আরো কয়েক জাতের চাহিদা বেশী। তবে মৌলভীবাজারের মাটি ও জলবায়ু ফুল চাষের জন্য উপযোগী।

মৌলভীবাজার খামারবাড়ি সূত্রে জানা যায়, ফুল সৌন্দর্যে জন্য জনপ্রিয়। ফুলের বীজ ও চারা প্রাপ্তির স্থান হচ্ছে কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তর, বিএডিসির হর্টিকালচার সেন্টার ও বেসরকারি নার্সারী। ফুল চাষ করলে খরচ কম লাভ বেশি। চাষ, পরিচর্যা, সার, সেচ ইত্যাদি অন্য ফসলের চেয়ে কম লাগে। রোগবালাই তেমন হয় না। ঝুঁকিও নেই। উৎপাদনে সময় লাগে মাত্র ৬০-৭০ দিন। অধিকাংশ ফুলের বীজ, চারা, কলম বা কন্দ অশ্বিন থেকে অগ্রাহায়ন পর্যন্ত রোপণের উপযুক্ত সময়। উঁচু দো-আঁশ মাটি ফুল চাষের জন্য উপযোগী। শীত মৌসুমেও অনেক রকম ফুলের চাষ করা হয়।

কিন্তু ফুলের ব্যাপক চাহিদা থাকা স্বত্বেও  মৌলভীবাজার অঞ্চলে নেই ফুলের বাণিজ্যিক চাষাবাদ। জেলার কোথাও নেই একটিও বাণিজ্যিক ফুল বাগান। পরিকল্পিতভাবে চাষ না হওয়ায় এখানকার দোকানীরা রাজধানীসহ অন্য জেলা থেকে চড়া দামে কিনে আনতে হচ্ছে ফুল। যারফলে ফুল কিনতে এসে ক্রেতাদেরকেও গুনতে হচ্ছে বাড়তি টাকা।

ফুল ব্যবসায়ী আব্দুল আলিম চৌধূরী বলেন, মৌলভীবাজারে ফুলের চাহিদা অনেক বেশী। আমরা ফুল চুয়াডঙ্গা, যশোর অথবা ঢাকা থেকে ফুল সংগ্রহ করে থাকি। ফুল ওইখান থেকে আনতে আমাদেও খরচ অনেক বেশী হয়ে যায়। ঢাকা থেকে যদি ২শত টাকায় কিনে আনলে  মৌলভীবাজারে সেটা বিক্রি করতে হচ্ছে ৫শত টাকায়। এখানে খরচ বেশী থাকার কারণে ক্রেতারা ভূগান্তির শিকার হচ্ছেন। মৌলভীবাজারে যদি ফুল চাষের উদ্যোগ নেয়া হয় তা হলে আমরা সহজেই ফুল পাব এবং কম মূল্যে।

মৌলভীবাজার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো: শাহাজাহান বলেন, মৌলভীবাজারে বাণিজ্যিকভাবে ফুল চাষ হচ্ছে না। তবে এজেলায় কেউ যদি ফুল চাষ করতে চায় তাহলে চাষ সম্ভব। অনেকে ভাবেন এখানের মাটি উপযুগী নয়। এটা ভূল ধারণা। মাটিকে ফুল চাষের জন্য তৈরি করলে চাষ সম্ভব হবে। কোন ব্যাক্তি যদি চান চাষ করতে তাহলে কৃষি অফিস থেকে সার্বিক সহযোগিতা করা হবে।

ফুলের সৌরভ যেমন মানুষকে বিমোহিত করে তেমনি এর সৌন্দর্য পরিবেশকেও করে তোলে আকর্ষণীয়। মৌলভীবাজারে ফুলের বাণিজ্যিক চাষাবাদের মাধ্যমে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের পাশাপাশি কর্মসংস্থানেরও সুযোগ করা যাবে। তবে এর জন্য প্রয়োজন সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/০৭ ডিসেম্বর ২০১৭/ওএফএন/এমকে-এম

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   সিলেটে মাজার জিয়ারত করে গেলেন বিএনপি মহাসচিব ফখরুলের স্ত্রী
  •   মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ‘বীর নিবাস’ উদ্বোধন করলেন এমপি কয়েস
  •   পবিত্র ওমরাহ্ পালনে যাচ্ছেন সাংবাদিক মঞ্জুর হোসেন খান
  •   বাহুবলে তিন মাদ্রাসাছাত্র নিখোঁজ
  •   সিলেটে ডিজিটাল মার্কেটিং বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা সম্পন্ন
  •   চুনারুঘাটে মাকে বেঁধে মেয়েকে গণধর্ষণের অভিযোগ
  •   সাবেক মেয়র পাপলুর মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল
  •   সিলেটের ১৯ টি আসনে জমিয়তের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ঘোষণা
  •   বিশ্বনাথে আ’লীগ নেতার বাড়িতে হামলা, নারীসহ আহত ৫
  •   পার্বত্য চট্টগ্রাম: সমস্যা ও সমাধান বইয়ে বিশেষ ছাড়
  •   রাজনগরে পাহাড় ধসে শ্রমিক নিহত
  •   সেরা শহীদ মিনারটিই বানাতে চায় স্কুল ছাত্র রাহি
  •   ইংরেজিতে দাওয়াত কার্ড পীড়া দেয় শেখ হাসিনাকে
  •   জকিগঞ্জে দপ্তরী নিয়োগে অনিয়ম-স্বজনপ্রীতির অভিযোগ
  •   শমশেরনগরে উস্তওয়ার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন
  • সাম্প্রতিক সিলেট খবর

  •   সিলেটে মাজার জিয়ারত করে গেলেন বিএনপি মহাসচিব ফখরুলের স্ত্রী
  •   মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ‘বীর নিবাস’ উদ্বোধন করলেন এমপি কয়েস
  •   পবিত্র ওমরাহ্ পালনে যাচ্ছেন সাংবাদিক মঞ্জুর হোসেন খান
  •   বাহুবলে তিন মাদ্রাসাছাত্র নিখোঁজ
  •   সিলেটে ডিজিটাল মার্কেটিং বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা সম্পন্ন
  •   চুনারুঘাটে মাকে বেঁধে মেয়েকে গণধর্ষণের অভিযোগ
  •   সাবেক মেয়র পাপলুর মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল
  •   সিলেটের ১৯ টি আসনে জমিয়তের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ঘোষণা
  •   বিশ্বনাথে আ’লীগ নেতার বাড়িতে হামলা, নারীসহ আহত ৫
  •   পার্বত্য চট্টগ্রাম: সমস্যা ও সমাধান বইয়ে বিশেষ ছাড়
  •   রাজনগরে পাহাড় ধসে শ্রমিক নিহত
  •   সেরা শহীদ মিনারটিই বানাতে চায় স্কুল ছাত্র রাহি
  •   জকিগঞ্জে দপ্তরী নিয়োগে অনিয়ম-স্বজনপ্রীতির অভিযোগ
  •   শমশেরনগরে উস্তওয়ার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন
  •   কমলগঞ্জে দিনব্যাপী উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর লোকজ উৎসব