‘ওখানে মেয়েদের জীবন নেই’

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৭-০৯-১৩ ০০:২২:৪৫

‘মেয়েদের ছাড়ে না ওরা। উঠতি বয়সের মেয়ে। ঘরের বউ যার আছে, সে শেষ। মেয়েদের তো ধর্ষণ করেই। এর পরেও ক্ষমা নেই। ওখানে মেয়েদের জীবন নেই, বাবা।’

দুদিন হলো কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্প কুতুপালংয়ে এসেছেন মদিনা খাতুন। ক্যাম্পের বাইরে রাস্তায় রাস্তায় দিন-রাত কাটছে তাঁর। বয়স পঞ্চাশের বেশি হবে। সোমবার তিনি এসব কথা বলেন।

মিয়ানমারে মদিনা খাতুনের গ্রামের নাম রাসিদং। ঈদের পরই তাঁর স্বামী হাবিব উল্লাহকে গুলি করে হত্যা করেছে মিয়ানমারের সেনারা। তাঁর পাঁচ ছেলে ও এক মেয়ে। এর মধ্যে দুই ছেলে নিখোঁজ। আসার সময়েও কোনো খোঁজ পেলেন না। এখন ভেবে নিয়েছেন, ওরা আর নেই। দুই ছেলের বউও আছে। তাদের ফেলে আসেননি মদিনা। তাঁর ভাষ্য, মেয়েদের জন্য মোটেও নিরাপদ নয় ওই এলাকা।

কুতুপালং ক্যাম্পের উল্টোপাশের সড়কে খাবারের জন্য দৌড়াদৌড়ি করছিলেন মদিনা। স্বামী কোথায় প্রশ্ন করতেই তিনি কান্নায় ভেঙে পড়েন।

‘বাবা, ওরা মেরে ফেলেছে ওকে। গুলি করে মেরে ফেলেছে’, বলেন মদিনা।

মিয়ানমারের সেনারা কী ধরনের নির্যাতন করে—জানতে চাইলে মদিনা বলেন, ‘মেয়েদের ওপর ওদের চোখ পড়ে বেশি। মেয়েদের ইচ্ছামতো ধর্ষণ করে। বড় বীভৎস সে দৃশ্য। সবার সামনে মেয়েদের ইজ্জত-সম্মান নিয়ে খেলা করে।’

মদিনা জানান, নারীদের ধর্ষণ করার পর গলা কেটে হত্যা করে সেনা ও তাদের লোকজন। শুধু তাই নয়, নারীদের স্তন কেটে ছেড়ে দেওয়া হয়। এর পর দেখে ওই নারী কী করে। তীব্র মৃত্যুযন্ত্রণা দিয়ে আনন্দ করে এক পর্যায়ে মেরে ফেলে।

মদিনা জানান, তাঁর এক প্রতিবেশী নারী শিশুকে বুকের দুধ পান করাচ্ছিল। সেনারা ওই নারীর দুই স্তন কেটে দেয়। পরে ওই শিশুকে ঠেলে দেয় নারীর বুকে। এসব বীভৎস দৃশ্য তাদের খুব ভালো লাগে। এমনও দৃশ্য মদিনা দেখেছেন, যেখানে নারীকে ধর্ষণ করে শরীরে কেরোসিন ঢেলে দেয়। তার পর ওর পুড়ে মারা যাওয়া দেখে।

মদিনা বলেন, যেসব ঘরে মেয়ে আছে, সেসব ঘরের মানুষ খুব কমই মেয়ে নিয়ে বাংলাদেশে আসতে পেরেছে। প্রতিটি পরিবারের কেউ না কেউ মারা গেছে সেনাদের গুলিতে।

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : ৬৫৪ বার

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   ইসকন ভক্ত সম্মেলনের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত
  •   সিলেটে ২০ শুল্ক কর্মকর্তাকে ‘বদলি’
  •   কমলগঞ্জে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ: নারীসহ আহত ৬
  •   লিডিং ইউনিভার্সিটিতে চলছে সোশ্যাল সার্ভিস ক্লাবের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতা
  •   কমলগঞ্জে মণিপুরী মুসলিম টিচার্স ফোরামের মতবনিমিয় সভা
  •   এশিয়ান আরচ্যারী চ্যাম্পিয়নশীপ ঢাকা-২০১৭ উপলক্ষে সিলেটে র‌্যালী
  •   ঈদ-এ মিলাদুন্নবী উপলক্ষে আনন্দ মিছিল অনুষ্ঠিত
  •   ‘বিদ্যুতের দামে জনজীবনে প্রভাব পড়বে না’
  •   ‘আওয়ামী লীগ আবারও সরকার গঠন করবে’
  •   শহীদ জিয়ার ছোট ভাইয়ের ইন্তেকালে সিলেট জেলা বিএনপির শোক
  •   সিলেটে বিপুল পরিমাণ অবৈধ সিগারেট জব্দ
  •   আজ থেকে বিপিএল চট্টগ্রামে
  •   বারী সিদ্দিকীর জানাজা অনুষ্ঠিত
  •   যুক্তরাজ্যে বদরুজ্জামান সেলিমের সমর্থনে মতবিনিময়
  •   দক্ষিণ সুরমায় শশুড়বাড়ি থেকে গৃহবধূ নিখোঁজ
  • সাম্প্রতিক জাতীয় খবর

  •   ‘বিদ্যুতের দামে জনজীবনে প্রভাব পড়বে না’
  •   গাজীপুরে দুর্ঘটনায় ট্রেনচালক নিহত
  •   বিএটিবি’র ব্যাটল অব মাইন্ড প্রতিযোগিতা বন্ধের দাবি
  •   ফের বাড়ল বিদ্যুতের দাম
  •   ফের বাড়ল বিদ্যুতের দাম
  •   গোসল করিয়ে আমাকে পাতলা ফিনফিনে কাপড় পরতে দেয়
  •   সংসদে মওদুদের কড়া সমালোচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী
  •   ৩০ নভেম্বর সারাদেশে হরতাল
  •   আবারও বাড়ল বিদ্যুতের দাম
  •   রোহিঙ্গাদের ফেরাতে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সমঝোতা স্মারকে সই
  •   গাজীপুরে স্ত্রী হত্যায় আয়নাল হকের ফাঁসি
  •   গৃহস্থালীর তুলনায় শিল্প ও সেবাখাতে বিদ্যুতের ব্যবহার বাড়াতে হবে
  •   ছাত্র-শ্রমিক সংঘর্ষে দিনাজপুরে বাস চলাচল বন্ধ
  •   ঘোড়ামারা আজিজসহ ছয়জনের মৃত্যুদণ্ড
  •   ফরিদপুরের ছেলের হাতে বাবা খুন