৯ বছর আগে ‘গুম’ হওয়া জালাল আদালতে হাজির

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৮-০১-১৭ ১০:৪৫:৩০

কিশোরগঞ্জে নয় বছর আগে এক ব্যক্তিকে অপহরণ ও খুনের অভিযোগে মামলা চলার মধ্যেই তিনি আদালতে হাজির হয়েছেন।

জালাল উদ্দিন নামের ওই ব্যক্তি বলছেন, মানবপাচারকারীরা তাকে নিয়মিত মাদক দিয়ে অজ্ঞাতস্থানে আটকে রেখেছিল। এ কারণে তার স্মৃতিশক্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

তবে মামলার আসামিদের অভিযোগ, তাদের ফাঁসানোর জন্যই জালাল এত দিন আত্মগোপন করে ছিলেন।

জালাল কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলার লাকুহাটি গ্রামের মফিজ উদ্দিনের ছেলে।

কিশোরগঞ্জের পিপি এ কে এম আমিনুল হক চুন্নু মামলার নথির বরাতে বলেন, ২০০৯ সালের ১০ জুলাই জালালকে খুনের পর লাশ গুম করার অভিযোগ করেন তার স্ত্রী ললিতা বেগম। এ ঘটনায় তিনি একই এলাকার পাঁচজনের বিরুদ্ধে হোসেনপুর থানায় মামলা করেন।

আসামিরা হলেন - শংকর বাবু, আসাদ মল্লিক, হিরা মিয়া, তার ভাতিজা রুহুল আমিন ওরফে রঙ্গু ও ভাগনে আজহারুল ইসলাম।

মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, আসামিরা জালালকে সৌদি আরব পাঠানোর কথা বলে আড়াই লাখ টাকা নেন। অনেক দিন ঘোরানোর পর তাকে বিদেশ পাঠানোর প্রক্রিয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে ঢাকায় নেন আসামিরা। এরপর থেকে জালাল নিখোঁজ হন।

জালালের বরাতে পিপি আমিনুল বলেন, আসামিরা জালালকে আটক করে রেখে নেশাজাতীয় ওষুধ প্রয়োগ করেন। এতে তিনি মানসিক ভারসাম্য ও স্মৃতিশক্তি হারান। সম্প্রতি তিনি তাদের কাছ থেকে পালিয়ে যান। অপ্রকৃতিস্থ অবস্থায় ঘুরে বেড়ানোর পর হঠাৎ কিছুটা স্মৃতিশক্তি ফিরে পেয়ে বাড়ি ফেরেন।

এ ঘটনা আদালতে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে জানিয়ে পিপি আমিনুল বলেন, তবে আদালত এ বিষয়ে এখনও শুনানির দিন ঠিক করেনি।

অপরদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবী মিজানুর রহমান বলেন, এসব মিথ্যা ও সাজানো কথা। তার মক্কেলদের হয়রানি করার জন্য এসব করা হচ্ছে।

তিনি জানান, মামলার পর থেকে আসামি শংকর বাবু ও আসাদ মল্লিক পলাতক রয়েছেন। রুহুল আমিন ওরফে রঙ্গু ও হিরা মিয়া তিন বছর পলাতক থাকার পর আদালতে আত্মসমর্পণ করে তিন মাস জেল খাটার পর জামিন পান। অপর আসামি আজহারুল ইসলামও চার মাস জেল খেটে জামিন পান।

আসামি হিরা মিয়া  বলেন, “আমি, আমার ভাতিজা রুহুল ও ভাগ্নে আজহারুল - আমরা মামলার বিষয়বস্তু সম্পর্কে কিছুই জানি না। বাদীর সঙ্গেও আমাদের কোনো বিরোধ নাই।

“আমরা কৃষিকাজসহ ছোটখাটো ব্যবসা করে জীবিকা নির্বাহ করি। কিন্তু মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে আমাদের হয়রানি করা হয়েছে। দীর্ঘদিন পালিয়ে থাকা ও মামলার খরচ জোগাতে গিয়ে আর্থিকভাবে চরম ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় সর্বস্বান্ত হয়ে পড়েছি। সেই সঙ্গে সামাজিকভাবে হেয় ও অপমানিত হয়েছি।”

তিনি প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনসহ ন্যায় বিচারের দাবি জানিয়েছেন।

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   ভাষা দিবসে মদন মোহন কলেজ ছাত্রলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলি
  •   তিন লাখ টাকায় রেহাই পাচ্ছেন কোটিপতি স্বামী!
  •   বইমেলায় পর্ন তারকা মিয়া খলিফার নামে স্টল, ৩জন আটক
  •   রাজনৈতিক তদবির শুনবে না পুলিশ
  •   গুগলে গোপনে মেয়েরা যে ১০টি তথ্য বেশি খোঁজে!
  •   স্বামী-স্ত্রীর রক্তের গ্রুপ এক হলে যা হয়
  •   যে দেশের ৩২ কোটি মানুষের হাতে ২৯ কোটি অস্ত্র!
  •   যেভাবে জানবেন সিমটি ফোরজি কিনা
  •   প্রশ্ন ফাঁসের ৬টি বড় কারণ তুলে ধরলেন শিক্ষামন্ত্রী
  •   অভিনয় ছেড়ে পেট্রোল পাম্পে কাজ শুরু করছেন আনুশকা!
  •   এবার 'ক্লিভেজ' বিতর্কে প্রিয়াঙ্কা
  •   বিমানে দুর্ব্যবহার, নামিয়ে দেওয়া হল নারীকে
  •   'পোশাক খুলে পড়ার পর কান্নায় ভেসে যাচ্ছিলাম, কিন্তু থামিনি'
  •   মাটির নিচে রহস্যময় এক গ্রাম!
  •   মালয়েশিয়ায় ১৭ বাংলাদেশি আটক
  • সাম্প্রতিক জাতীয় খবর

  •   তিন লাখ টাকায় রেহাই পাচ্ছেন কোটিপতি স্বামী!
  •   বইমেলায় পর্ন তারকা মিয়া খলিফার নামে স্টল, ৩জন আটক
  •   রাজনৈতিক তদবির শুনবে না পুলিশ
  •   প্রশ্ন ফাঁসের ৬টি বড় কারণ তুলে ধরলেন শিক্ষামন্ত্রী
  •   একু‌শের প্রথম প্রহরে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
  •   একুশে পদক পেলেন ২১ জন
  •   ‘প্রমাণ মেলেনি’ রাবির দুই শিক্ষকের জালিয়াতির
  •   কেরানীগঞ্জে তরুণীর মরদেহ উদ্ধার
  •   সিরাজগঞ্জে নিখোঁজের দু’দিন পর শিক্ষকের মরদেহ উদ্ধার
  •   বেনাপোলে বিজিবির গুলিতে চোরাচালানী নিহত
  •   চুয়াডাঙ্গায় অস্ত্রসহ ৪ ডাকাত গ্রেফতার
  •   এসআইর কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ছাত্রীকে মাদক মামলায় জেলে
  •   মন্ত্রী কি প্রশ্নফাঁস করতে গেছে?
  •   ফোরজির জগতে বাংলাদেশ
  •   কিছু বলতে চাই না, বললেই তো অনেক দোষ: প্রধানমন্ত্রী