আইইবি নির্বাচনের পূর্বাপর

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৭-১১-১২ ১৭:১২:৩৫

প্রকৌশলী আহসান হাবীব:  ‘দৈনিক জনকন্ঠ, মানবকন্ঠ, স্বদেশ জমিন এবং আমাদের সময়’ নামের পত্রিকাতে প্রকৃত তথ্য অনুসন্ধান না করে “আইইবি নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা, ক্ষুব্ধ আওয়ামী লীগপন্থী পেশাজীবীরা” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং একজন সচেতন প্রকৌশলী হিসাবে তীব্র ক্ষোভ এবং নিন্দা জ্ঞাপন করছি। আমি মনে করি অভিযোগ এবং প্রতিবাদ দুটোই উপযুক্ত যুক্তি এবং তথ্য প্রমাণ দিয়ে উপস্থাপন করা প্রয়োজন।

প্রকৌশলী সমাজের ভেতর অত্যন্ত প্রভাবশালী পেশাজীবি সংগঠন ‘ইন্সটিটিউট অফ ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইইবি)’ এর আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে এ বছরের ২১ ডিসেম্বর। এই নির্বাচন উপলক্ষে অত্যন্ত উৎসবমুখর হয়ে উঠেছে আইইবি প্রাঙ্গণ। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ তারিখ ছিল গত ১৬ অক্টোবর। নির্ধারিত তারিখের ভিতর আওয়ামী লীগ এবং বিএনপি পন্থীসহ সকল প্রকৌশলীদের মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে।

মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের প্রকৌশলীদের সংগঠন বঙ্গবন্ধু প্রকৌশলী পরিষদ (বিপিপি), সভাপতি পদে আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এবং আইইবির বর্তমান সম্মানী সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সবুর এবং সম্মানী সাধারণ সম্পাদক পদে প্রকৌশলী খন্দকার মঞ্জুর মোর্শেদ এর নের্তৃত্বে তাদের চূড়ান্ত মনোনয়ন ঘোষণা করে।

বর্তমান সরকারের প্রকৌশলীবান্ধব নীতিমালা এবং সবুর-মঞ্জুর প্যানেলের বিপুল জনপ্রিয়তা আঁচ করে বিএনপিপন্থী প্রকৌশলীদের সংগঠন এ্যাসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (এইবি) বুঝে যায় যে আসন্ন নির্বাচনে তাদের পরাজয় অবশ্যম্ভাবী। এরা তখন শুরু করে ষড়যন্ত্রের রাজনীতি। ‘এ্যাসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (অ্যাব)’ এর প্রেসিডেন্ট এবং বিতর্কিত পত্রিকা আমাদের দেশের সম্পাদক মাহমুদুর রহমান গোপন বৈঠক করেন মাহমুদুর রহমান মান্নার ভাই আওয়ামী লীগ লেবাসধারী প্রকৌশলী মেজবাহুর রহমান টুটুলের সাথে। ষড়যন্ত্রের নীলনকশা অনুযায়ী অ্যাব গুজব ছড়িয়ে দেয় যে তাদের সকল প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাহার করবে। আর কিছু স্বার্থান্বেষী আওয়ামী লেবাসধারী প্রকোশলীদের নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোর আশায় ‘বিপিপি সমর্থিত’ মিথ্যা দাবি করে একটি প্যানেল ঘোষণা করেন প্রকৌশলী মেজবাহুর রহমান টুটুল।

যেখানে সভাপতি পদে রয়েছেন বুয়েটের সাবেক ভিসি অধ্যাপক নজরুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক পদে রয়েছেন পিডিবির পাওয়ার সেলের ডিজি প্রকৌশলী মোহাম্মাদ হোসেন এবং টুটুল দাঁড়িয়েছেন ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে। বস্তুত এটা একটা স্বার্থেন্বেষী প্যানেল এবং এর সাথে বঙ্গবন্ধু প্রকৌশলী পরিষদের কোনো সম্পর্ক নেই। আমাদের দেশ পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমান এবং প্রকৌশলী মেজবাহুর রহমান টুটুলের নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধু প্রকৌশলী পরিষদের নেতা-কর্মীদের বিভ্রান্ত করার লক্ষ্যে মঞ্চস্থ হচ্ছে এই নোংরা নাটক। সবুর-মঞ্জুর প্যানেলের বিপুল জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে সুনাম নষ্টের জন্য তারা ভুয়া সংবাদ প্রচার করে যাচ্ছে অনলাইনসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

এবার আসি, বিপিপি সমর্থিত মিথ্যা দাবিদার সম্মানী সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী পাওয়ার সেলের ডিজি প্রকৌশলী মোহাম্মাদ হোসেনের জনপ্রিয়তা প্রসঙ্গে। উনি এখন পর্যন্ত ৪ বার নির্বাচনে অংশ নিয়ে তিন বার বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছেন। আর বর্তমানে উনি পাওয়ার সেলের ডিজি হবার পর মাসের ৩০ দিনের ২০ দিন থাকেন দেশের বাইরে। কথিত আছে, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কূটনীতিকদের বিদেশ সফরের সংখ্যাও মোহাম্মাদ হোসেনের বিদেশ সফরের কাছে কিছুই না। আর উনি যে বলেছেন আইইবিতে বহিরাগত লোক নিয়ে শোডাউন করছেন প্রকৌশলী আবদুস সবুর তা পুরাপুরি ভিত্তিহীন। যেহেতু সামনে প্রকৌশলীদের অন্যতম সংগঠনের নির্বাচন, তাই স্বাভাবিকভাবেই প্রকৌশলীদের আনাগোনা বেড়ে গেছে, যাদের উনি বহিরাগত হিসাবে আখ্যায়িত করেছেন।

কিন্তু এটা বলেন নাই যে, উনি নিজে চাঁদপুর, শাহরাস্তি থেকে ভাড়া করে টোকাই ধরে এনে নমিনেশন পেপার জমা দিয়েছেন। নিজের জনপ্রিয়তা শূন্যের কোঠায় দেখে উনি বিএনপিপন্থী প্রকৌশলীদের সাথে হাত মিলিয়ে অপপ্রচার করছেন।

অপরদিকে, তাদের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী বুয়েটের সাবেক ভিসি অধ্যাপক নজরুল ইসলামকে সবাই চেনেন এবং জানেন। বিভিন্ন দুর্নীতি ও অনিয়মের দায়ে বুয়েটের ভিসি থাকাকালীন সময়ে প্রচন্ড ছাত্র আন্দোলনের ভিতরও তিনি নিজের পদ আঁকড়ে বসে ছিলেন আর এ কারণে সব মহলে তার তীব্র সমালোচনাও হয়েছিল। দীর্ঘ দুই বছর বুয়েটের সম্মানিত শিক্ষকরা এই দুর্নীতিবাজ ভিসির সাথে একাডেমিক কাউন্সিলের মিটিংয়ে বসতে রাজি হননি। বুয়েটে আসার আগে উনি খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ছাত্র আন্দোলনের মুখে পালিয়ে এসেছিলেন যা একজন প্রকৌশলী হিসাবে প্রচন্ড অপমানের।

এই সব ষড়যন্ত্রকারীরা আইইবির আগামী নির্বাচনে নিজেদের অবস্থান দুর্বল দেখে বিএনপি-জামায়াত পন্থী প্রকৌশলীদের নেতা মাহমুদুর রহমানের সাথে হাত মিলিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রকৌশলীদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করে যাচ্ছেন। আমি একজন প্রকৌশলী হিসাবে নীতি নৈতিকতার জায়গায় দাঁড়িয়ে প্রকাশিত ভুয়া সংবাদের তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সাথে সকল প্রকৌশলী ভাই ও বোনকে এইসব সুযোগ সন্ধানী ভুঁইফোড় প্রকৌশলীদের থেকে দূরে থাকা এবং এদেরকে বিশ্বাস না করার জন্য অনুরোধ করছি।


লেখক :   প্রকৌশলী আহসান হাবীব, সদস্য, ইন্সটিটিউট অফ ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইইবি)

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : ১১৩ বার

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   ফের জুটিবদ্ধ হচ্ছেন শাকিব-শ্রাবন্তী
  •   'দৈত্যকার গহ্বর' পৃথিবী ধ্বংসের ইঙ্গিত!
  •   উত্তর কোরিয়ায় চীনের বিমান চলাচল স্থগিত
  •   ভিনগ্রহের প্রাণী নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড়
  •   যে শব্দগুলো গুগলে ভুলেও খুঁজবেন না
  •   সর্দি-কাশি, ঠান্ডা এড়াতে খাদ্যতালিকায় রাখুন এসব খাবার
  •   আপেল খাওয়ার ১০টি স্বাস্থ্য উপকারিতা!
  •   মধ্যরাতে মদের পার্টিতে যেতে বাধ্য করা হয় জারিনকে
  •   ব্রিটিশ রাজবধূর ভাইয়ের প্রেমে পড়েছেন প্রিয়াঙ্কা!
  •   কাদের-ফখরুলদের কীভাবে জানতেন বঙ্গবন্ধু?
  •   ছাত্রদল নেতা মকসুদের যুক্তরাষ্ট্র যাত্রায় সংবর্ধনা
  •   শাহী ঈদগাহে ‘শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে’ ফের মেলা!
  •   শূন্যতা পূরণ হয়নি হারিছ-ইলিয়াসের
  •   ডিসেম্বর থেকে সিলেটি বধু মাহির ‌‘অবতার’
  •   বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের সাথে প্যারিস-বাংলা প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়