নারীদের নৃশংসভাবে ধর্ষণ করা হতো 'ক্যাম্প-২২'-এ!

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৭-০৬-১৯ ০০:৩৬:৫৪

উত্তর কোরিয়ার Haengyong Concentration Camp কে ক্যাম্প-২২ বলা হত। পৃথিবীর নিশংসতম জায়গাগুলোর তালিকায় ক্যাম্প-২২ এ মানুষকে কখনোই মানুষ বলে মনে করা হতো না। এখানে অভুক্ত শিশুরা খাবারের জন্য প্রহরীর লাথি খেয়ে মারা পড়ত। নারীদের নৃশংসভাবে ধর্ষণ ও নির্যাতন করে মেরে ফেলে হত। এখানে প্রসূতি নারীদের সরাসরি পেট কেটে ভ্রূণ বের করে ফেলা হতো। বড় তক্তা দিয়ে পিষে পিষে গর্ভপাত করানো হতো ৮-৯ মাসের প্রসূতিকে ! এখানে রাজনৈতিক সমালোচনা বা রাজনৈতিক ‘অপরাধী’কে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়া হতো। 

২০১২ সালে আর্ন্তজাতিক গণম্যাধম এর নজরে আসে যখন এর একজন রক্ষি চীনে পালিয়ে যায়। রাজনৈতিক বন্দিদের এখানে এনে এখানে রাখা হয়, এমনি কি তিন পুরুয ধরে পর্যায়ক্রমে পরিবারের সদস্যদের এখানে ধরে আনা হয় যাতে আন্দোলনের শিকর উপরে ফেলা যায়। উত্তর কোরিয়ার উত্তর পূর্ব সীমান্তে হোয়ের ইয়ং কাউন্টিতে ২২৫ বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে এই নরকের অবস্থান ছিলো। চারদিকে পাহাড়ে ঘেরা এই ক্যাম্প ১০ ফুট চওড়া ৩,৩০০ ভোল্টের বৈদ্যুতিক বেড়া দিয়ে আবৃত। কঠোর নিরাপত্তা এবং ক্যাম্প পরিচালনার জন্য প্রায় ১,০০০ অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত এবং প্রশিক্ষিত কুকুরসহ পাহারাদার এবং ৫০০–৬০০ কর্মকর্তা ছিলো। কিছুদূর পর পর ল্যান্ড মাইন এবং মানুষ মারার গোপন ফাঁদ ছিল এখানে। প্রায় ৫০ হাজার নারী পুরুষ ও শিশুবন্দী ছিল বলে জানা যায়। 

ক্যাম্প-২২ নিয়ে ব্যাপক গবেষণা করেন ডেভিড হক নামে এক মানবাধিকার গবেষক। তিনি ক্যাম্পের কিছু সাবেক পাহারাদার এবং পালিয়ে আসা বন্দিদের কাছ থেকে বেশ কিছু সাক্ষাৎকার নেন। সাধারণত বহির্বিশ্বের মানুষ এই ক্যাম্পগুলোর কর্মকাণ্ড সম্পর্কে জানতে পেরেছে তাদের কাছ থেকে- যারা একসময় এই ক্যাম্প-২২ এর কর্মী হিসেবে ছিলেন। অথবা যারা পালিয়ে এসেছেন। জানা যায়, এসব ক্যাম্পের বন্দীদের দিয়ে চাষবাস থেকে শুরু করে কারখানার কাজও করানো হয়। উত্তর কোরিয়ার অর্থনীতির একটা বিশাল অংশ জুড়ে রয়েছে এই ক্যাম্পগুলোর শিল্পোৎপাদন। এরকম ভয়াবহ নরক উত্তর কোরিয়ায় আরো রয়েছে।

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : ৩৭১ বার

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   সুনামগঞ্জ জেলা বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারি ফোরামের কমিটি গঠন
  •   সিয়েরা লিয়নে ভূমিধসে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪৬৭
  •   প্রথম বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বৃটিশ হাইকোর্টের বিচারক
  •   অপসারণ ইস্যুতে মুখ খুললেন ব্যানন
  •   জগন্নাথপুরে বিদেশী রিভলবারসহ যুবক র‍্যাবের খাঁচায়
  •   নতুন জল্পনার জন্ম দিলেন রিয়া সেন
  •   নওগাঁয় ট্রাক উল্টে নিহত ৬
  •   'রাষ্ট্রের প্রধান ৩টি স্তম্ভ ধ্বংসের ষড়যন্ত্র করছে সরকার'
  •   আরও দু’টি হজ ফ্লাইট বাতিল
  •   সুনামগঞ্জে ছাত্রলীগের রক্তদান কর্মসূচি অনুষ্ঠিত
  •   সিলেট যেভাবে বাংলাদেশের অংশ হলো
  •   এবার সিনহার কাছে সংসদ ভেঙে দেয়ার রায় চায় বিএনপি
  •   শিক্ষামন্ত্রীর জামাতাকে কেন পেটালো ছাত্রলীগ
  •   এবার কোরবানি না দিয়ে যা করবেন ওমরসানি-মৌসুমী
  •   কর্মীর শাড়ি খুলে ফেলার চেষ্টা সিকিউরিটি ম্যানেজারের (ভিডিও)
  • সাম্প্রতিক আন্তর্জাতিক খবর

  •   সিয়েরা লিয়নে ভূমিধসে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪৬৭
  •   প্রথম বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বৃটিশ হাইকোর্টের বিচারক
  •   অপসারণ ইস্যুতে মুখ খুললেন ব্যানন
  •   কর্মীর শাড়ি খুলে ফেলার চেষ্টা সিকিউরিটি ম্যানেজারের (ভিডিও)
  •   বান্ধবীর অশ্লীল এমএমএস বানালো বন্ধুরাই, অতঃপর...!
  •   ট্রাম্প প্রশাসনে কে এই চমকজাগানো তরুণী
  •   লন্ডন-প্যারিস-বার্সেলোনা, এই তিন জঙ্গি হামলা থেকে বাঁচলেন যিনি!
  •   যে কারণে 'র‍্যাবিস' রোগের শিকার ১৫ কিশোর
  •   ভারত-চীন যুদ্ধ অবশ্যম্ভাবী, ব্লাড ব্যাংক তৈরি চীনের!
  •   বোরকা নিষিদ্ধ করার দাবিতে অদ্ভুত কাণ্ড নারী সাংসদের!
  •   'আসুন প্রতিদিন আরও ৩২জন করে হত্যা করি'
  •   ট্রাম্প নয়, পুতিনকেই বেশি বিশ্বাস করে মানুষ!
  •   ভেনেজুয়েলায় কারাগারে অভিযানে নিহত ৩৭
  •   ১০০ বছর ধরে বিমান ওড়াচ্ছে এই পরিবার
  •   বিশ্বের সেরা বাসযোগ্য শহর কোনটি, জানেন কী?