যে সম্প্রদায়ের লোকেরা বউদের ঠেলে দেয় পতিতাবৃত্তিতে!

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৭-০১-০৯ ০০:৩২:০৬

৭০ বছর হয়েছে ভারত স্বাধীন হয়েছে। কিন্তু এখনও দেশটির নারীরা পাননি তাদের প্রাপ্য সম্মান। নারীর অবমাননার অজস্র ঘটনা প্রত্যেক দিন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ঘটে যাচ্ছে। কিন্তু দিল্লির নজফগড়ের পরনা সম্প্রদায়ের মধ্যে যে ভয়াবহ রীতি প্রচলিত রয়েছে, তা কল্পনার অতীত। কারণ এখানে বাড়ির বউদের দিয়ে পতিতাবৃত্তি করানোই রীতি। এবং এই অসম্মানজনক পেশায় নারীদের ঠেলে দেন তাঁদের শ্বশুরবাড়ির লোকেরাই।

যেভাবে এলো এই রীতি:
পরনা সম্প্রদায়ভুক্ত মানুষদের বাড়িতে কন্যাসন্তান জন্মগ্রহণ করলে বাড়ির লোকজন খুশিই হন। কারণ তারা জানেন, একটু বড় হয়ে ওঠার পরে ‘পন্য’ হিসেবে এই মেয়েই খুলে দেবে তাদের উপার্জনের রাস্তা। পরনাদের মধ্যে ছোটবেলায় মেয়েদের লেখাপড়া শেখানোর রীতি নেই। বরং সাত-আট বছর বয়স হলেই বাবা-মা মেয়েকে পাঠিয়ে দেন কোন দালালের কাছে। সেই দালালের কাজ হয়, পতিতাবৃত্তিতে মেয়েদের প্রশিক্ষিত করা।

১২ থেকে ১৫ বছর বয়সের মধ্যে মেয়েদের বিয়ে দেওয়া হয়। অবশ্য বিয়েটাও এক রকম বাজার। কারণ মেয়েকে ঘরে নিয়ে যাওয়ার জন্য শ্বশুরবাড়ির লোকেরা মেয়ের বাবা-মার হাতে তুলে দেন মোটা অঙ্কের টাকা। যারা যত বেশি দর হাঁকতে পারেন, তাদের ঘরেই যায় মেয়ে।

বিয়ের কয়েক দিন পর থেকেই  বাড়ির বউয়ের জন্য ‘কাস্টমার’ খোঁজা শুরু হয়। এ ক্ষেত্রে ‘দালাল’-এর কাজ করেন মেয়েটির স্বামী। প্রত্যেক রাতে নতুন নতুন ক্রেতা আসে পতিতাবৃত্তিতে নামা নতুন বউয়ের কাছে। মেয়েটির পারিশ্রমিক ওঠে তার স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির অন্যান্য সদস্যদের হাতে।

পরনাদের মধ্যে বহু কাল থেকে এই রীতি চলে আসছে। দারিদ্রপীড়িত পরনাদের সংসার চলে মূলত পতিতাবৃত্তির মাধ্যমে বাড়ির বউয়ের উপার্জিত অর্থেই। মেয়েদের অভিভাবকরাও মেনে নিয়েছেন এই প্রথা। আর পরনা সম্প্রদায়ের মেয়েরা? তাদের মধ্যে এই রীতি নিয়ে ক্ষোভ রয়েছে, কিন্তু প্রতিবাদের সাহস নেই। কারণ পতিতাবৃত্তিতে রাজি না হলে শ্বশুরবাড়িতে মেয়েদের উপর চলে অকথ্য অত্যাচার, এমনকী সময় বিশেষে হত্যাও করা হয়।

কোন মানবাধিকার সংগঠন কিংবা নারীবাদী সংগঠন পরনা নারীদের অধিকার রক্ষায় কখনও সরব হয়নি। কোন সরকারও তাদের দিকে বাড়িয়ে দেয়নি সাহায্যের হাত। সত্যি বলতে কী, পরনাদের মধ্যে প্রচলিত এই ভয়াবহ প্রথার কথা সম্প্রদায়ের বাইরে খুব একটা বেশি কেউ জানে না। তবে আশার কথা এই যে, সম্প্রতি বিভিন্ন জাতীয় সংবাদমাধ্যমে একটু একটু করে প্রকাশ পাচ্ছে এই আদিম প্রথার খবর। এতে পরনা নারীদের দুর্দশা মোচনে সরকার উদ্যোগী হবে বলে আশা করা যায়।

সূত্র: এবেলা

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : ৭৪৬ বার

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   ছাতকে প্রবাসীর বাড়ির ‘কেয়ারটেকার’ মহিলার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ
  •   কমলগঞ্জে ভারতীয় মদ ও গাঁজাসহ আটক ১
  •   শাবিতে কিশোরগঞ্জ এসোসিয়েশনের নবীনবরণ বৃহস্পতিবার
  •   শাবিতে কিশোরগঞ্জ এসোসিয়েশনের নবীনবরণ বৃহস্পতিবার
  •   এইচএসসি’র ফলাফলে গোয়াইনঘাট তোয়াকুল কলেজের সাফল্য
  •   প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে হাওর উন্নয়ন পরিষদের সভা
  •   বন্যা দুর্গত মানুষের মাঝে উসমান চেয়ারম্যানের ত্রান বিতরণ
  •   শ্রীমঙ্গলে স্বামী হত্যায় স্ত্রীর স্বীকারোক্তি
  •   গোয়াইনঘাটে আওয়ামীলীগ নেতা আলা উদ্দিনের দাফন সম্পন্ন
  •   শিক্ষামন্ত্রীকে মামলা করার পরামর্শ দিলেন প্রধানমন্ত্রী
  •   জৈন্তাপুরে উপজেলা পর্যায়ে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্ট-১৭এর উদ্বোধন
  •   জৈন্তাপুরে ৩দিন ব্যাপি ফলদ বৃক্ষ মেলার উদ্বোধন
  •   ফেইসবুকে ‘বিশ্বনাথকে’ নিয়ে শিক্ষকের কটুক্তি
  •   সিদ্দিকুরের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর
  •   তিনতলা ৩টি ভবন উড়িয়ে দেয়া সম্ভব জৈন্তাপুরে উদ্ধার বিস্ফোরক দিয়ে
  • সাম্প্রতিক আন্তর্জাতিক খবর

  •   শপথ নিলেন ভারতের নতুন প্রেসিডেন্ট কোভিন্দ
  •   জরিমানা নয়, এবার চাকরির প্রস্তাব পাচ্ছে লন্ডনের সেই শিশু!
  •   এবার দক্ষিণ-চীন সাগরে 'সিনেমা হল' নির্মাণ বেইজিংয়ের!
  •   লোমহর্ষক ধর্ষণের ঘটনা শোনাল আইএসের যৌনদাসী (ভিডিও)
  •   'শৌচালয় নির্মাণের টাকা না থাকলে স্ত্রীকে বেচে দিন'
  •   আইএস ছেড়ে বাড়ি ফিরতে আকুল জার্মান কিশোরী
  •   একজন আইএস জঙ্গির মাসিক বেতন কত?
  •   গণধর্ষণের পর ৪ তলা ভবন থেকে ছুঁড়ে ফেলা হল কিশোরীকে
  •   লন্ডনের রেল স্টেশনে মুসলিম নারীকে হিজাব খুলে হেনস্থা
  •   জঙ্গিদের নিশানায় বিশ্বের তৃতীয় স্থানে ভারত : মার্কিন রিপোর্ট
  •   কাবুলে আত্মঘাতী গাড়ি বোমায় নিহত ২৪
  •   কলকাতার তিন বাংলাদেশি দোষী সাব্যস্ত
  •   রাশিয়ার সঙ্গে আঁতাত; বাঁচার উপায় খুঁজছেন ট্রাম্প
  •   চাঁদের মাটি আনা ব্যাগ নিলামে ১৮ লাখ ডলার
  •   মমতার দলে নাম লেখালেন অভিনেত্রী ইন্দ্রানী হালদার