যে সম্প্রদায়ের লোকেরা বউদের ঠেলে দেয় পতিতাবৃত্তিতে!

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৭-০১-০৯ ০০:৩২:০৬

৭০ বছর হয়েছে ভারত স্বাধীন হয়েছে। কিন্তু এখনও দেশটির নারীরা পাননি তাদের প্রাপ্য সম্মান। নারীর অবমাননার অজস্র ঘটনা প্রত্যেক দিন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ঘটে যাচ্ছে। কিন্তু দিল্লির নজফগড়ের পরনা সম্প্রদায়ের মধ্যে যে ভয়াবহ রীতি প্রচলিত রয়েছে, তা কল্পনার অতীত। কারণ এখানে বাড়ির বউদের দিয়ে পতিতাবৃত্তি করানোই রীতি। এবং এই অসম্মানজনক পেশায় নারীদের ঠেলে দেন তাঁদের শ্বশুরবাড়ির লোকেরাই।

যেভাবে এলো এই রীতি:
পরনা সম্প্রদায়ভুক্ত মানুষদের বাড়িতে কন্যাসন্তান জন্মগ্রহণ করলে বাড়ির লোকজন খুশিই হন। কারণ তারা জানেন, একটু বড় হয়ে ওঠার পরে ‘পন্য’ হিসেবে এই মেয়েই খুলে দেবে তাদের উপার্জনের রাস্তা। পরনাদের মধ্যে ছোটবেলায় মেয়েদের লেখাপড়া শেখানোর রীতি নেই। বরং সাত-আট বছর বয়স হলেই বাবা-মা মেয়েকে পাঠিয়ে দেন কোন দালালের কাছে। সেই দালালের কাজ হয়, পতিতাবৃত্তিতে মেয়েদের প্রশিক্ষিত করা।

১২ থেকে ১৫ বছর বয়সের মধ্যে মেয়েদের বিয়ে দেওয়া হয়। অবশ্য বিয়েটাও এক রকম বাজার। কারণ মেয়েকে ঘরে নিয়ে যাওয়ার জন্য শ্বশুরবাড়ির লোকেরা মেয়ের বাবা-মার হাতে তুলে দেন মোটা অঙ্কের টাকা। যারা যত বেশি দর হাঁকতে পারেন, তাদের ঘরেই যায় মেয়ে।

বিয়ের কয়েক দিন পর থেকেই  বাড়ির বউয়ের জন্য ‘কাস্টমার’ খোঁজা শুরু হয়। এ ক্ষেত্রে ‘দালাল’-এর কাজ করেন মেয়েটির স্বামী। প্রত্যেক রাতে নতুন নতুন ক্রেতা আসে পতিতাবৃত্তিতে নামা নতুন বউয়ের কাছে। মেয়েটির পারিশ্রমিক ওঠে তার স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির অন্যান্য সদস্যদের হাতে।

পরনাদের মধ্যে বহু কাল থেকে এই রীতি চলে আসছে। দারিদ্রপীড়িত পরনাদের সংসার চলে মূলত পতিতাবৃত্তির মাধ্যমে বাড়ির বউয়ের উপার্জিত অর্থেই। মেয়েদের অভিভাবকরাও মেনে নিয়েছেন এই প্রথা। আর পরনা সম্প্রদায়ের মেয়েরা? তাদের মধ্যে এই রীতি নিয়ে ক্ষোভ রয়েছে, কিন্তু প্রতিবাদের সাহস নেই। কারণ পতিতাবৃত্তিতে রাজি না হলে শ্বশুরবাড়িতে মেয়েদের উপর চলে অকথ্য অত্যাচার, এমনকী সময় বিশেষে হত্যাও করা হয়।

কোন মানবাধিকার সংগঠন কিংবা নারীবাদী সংগঠন পরনা নারীদের অধিকার রক্ষায় কখনও সরব হয়নি। কোন সরকারও তাদের দিকে বাড়িয়ে দেয়নি সাহায্যের হাত। সত্যি বলতে কী, পরনাদের মধ্যে প্রচলিত এই ভয়াবহ প্রথার কথা সম্প্রদায়ের বাইরে খুব একটা বেশি কেউ জানে না। তবে আশার কথা এই যে, সম্প্রতি বিভিন্ন জাতীয় সংবাদমাধ্যমে একটু একটু করে প্রকাশ পাচ্ছে এই আদিম প্রথার খবর। এতে পরনা নারীদের দুর্দশা মোচনে সরকার উদ্যোগী হবে বলে আশা করা যায়।

সূত্র: এবেলা

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : ৭০০ বার

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   সিলেট বিভাগীয় চাকরিজীবী পরিষদের সাধারণ সভা শুক্রবার
  •   জেনে নিন ফেসবুকে কে আপনাকে আনফ্রেন্ড করল
  •   সাঁতার না জানলে ডিগ্রি দেবে না বিশ্ববিদ্যালয়
  •   বলিউডের ৬ অজানা স্ক্যান্ডাল!
  •   অবশেষে নোবেল পুরস্কার নিতে রাজি হলেন বব ডিলান
  •   প্রেম ব্লাকমেইলিং অতঃপর খুন
  •   যে কারণে ধূমপানে আকৃষ্ট হচ্ছে নতুন প্রজন্ম
  •   বাংলাদেশ বদলে গেছে: তসলিমা নাসরিন
  •   পশ্চিমবঙ্গের 'বাংলা' নামকরণ আটকে দিল ভারত সরকার
  •   মৌলভীবাজারের নাসিরপুরে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান স্থগিত
  •   শ্বাসরুদ্ধকর অভিযানে যেভাবে যা ঘটলো আতিয়া মহলে
  •   ‘অপারেশন টোয়াইলাইট’: আদি-অন্ত
  •   সিলেট ও মৌলভীবাজারে ‘পরিকল্পনা’ করেই বাসা ভাড়া নেয় জঙ্গিরা!
  •   মৌলভীবাজারের জঙ্গি আস্তানা দু’টি দেখতে কেমন?
  •   সিলেট ও মৌলভীবাজার: জঙ্গি আস্তানাগুলোর সন্ধান একইভাবে
  • সাম্প্রতিক আন্তর্জাতিক খবর

  •   পশ্চিমবঙ্গের 'বাংলা' নামকরণ আটকে দিল ভারত সরকার
  •   অবশেষে নোবেল পুরস্কার নিতে রাজি হলেন বব ডিলান
  •   ক্ষমতা হারাতে পারেন ট্রাম্প!
  •   রাস্তায় 'থুতু' ফেললেই ৬ মাসের জেল!
  •   বিশ্বের দ্রুতগতির গাড়ি দুবাই পুলিশে, ঘণ্টায় ৪০৭ কিমি
  •   খোঁজ মিলল জয়ললিতার ‘গোপন ছেলে’ এবং ‘গুপ্ত প্রেমিক’র
  •   স্বাধীনতা দিবসে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদীর শুভেচ্ছা
  •   ফ্রান্সে মেট্রো স্টেশনে বন্দুকধারীর হামলা
  •   যে গ্রামের কোনও বাড়িতে এবং ব্যাংকে তালা লাগে না!
  •   ট্রাম্প-মেলানিয়ার দাম্পত্য জীবন নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য
  •   যুক্তরাষ্ট্রে ‘মায়ের দুধ’ আমদানি, ইউনিসেফের নিন্দা
  •   চালকবিহীন যুদ্ধবিমান তৈরি করছে ভারত
  •   হামলার সময় পার্লামেন্টের ভিতরেই ছিলেন টিউলিপ
  •   বঙ্গবন্ধু আমাদের দুই বাংলার প্রেরণা: মমতা
  •   ব্রিটিশ পার্লামেন্টের বাইরে হামলা: নিহত ৫, আহত ৪০