জলানন্দের হাকালুকি হাওর ভ্রমন

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৭-০৮-১৯ ০০:০৫:৫৪

ফরিদ উদ্দিন :: চারিদিকে থৈথৈ জল সাথে ফেনা তুলা ঢেউয়ের লাফালাফি। পাল তুলা নৌকায় মাঝিদের বাউলা গান! এমন মুগ্ধকর দৃশ্য ফেঞ্চুগঞ্জ হাকালুকি হাওরের।

মিনি কক্সবাজার নামে পর্যটকদের কাছে পরিচিত এ হাকালুকি হাওরে ভ্রমন করতে পারেন শীতে বা বর্ষায় যেকোন সময়। দুই সময়ে পাবেন আলাদা আলাদা আনন্দ।

বর্ষাকালে এ হাওর ছোট সাগরে রুপ নেয়। স্বচ্ছ পানিতে চলে সাতার কাটা, দাপাদাপি। কেউ কেউ ভাড়া করা বিলাস বহুল লঞ্চ বা স্পিড বোট নিয়ে দাপিয়ে বেড়ান হাওরে। রোমাঞ্চ বাড়াতে আছে স্কেডিং বোট।

আপনি চাইলে দুর্দান্ত গতির এ বোট ভাড়া করে জলানন্দে মাতে উঠতে পারেন। দিগন্ত জোড়া জলরাশির মধ্যে দ্বীপের মত সি,এন,আর,এস এর হিজল করচ বন আপনাকে মুগ্ধ করবে।

এখানেই শেষ নয়, পারিবারিক বা দলবদ্ধ পর্যটকদের জন্য আছে হাওর বিলাস নামে প্রমোদতরী। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এ প্রমোদ তরীতে রয়েছে, থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা ও।

শীতকালে এ হাওয়ের রুপ বদলে দেয় " অতিথি পাখির কোলাহলে" প্রায় তিনশত প্রজাতির হাজার হাজার পাখি আপনাকে মুগ্ধ করে রাখবে।

শীতকালের পর্যটকরা শুকনো হাওয়ের মাঝ খানে তাবু করে বার বি কিউ পার্টতে মেতে উঠেন। আর দুই সিজনেই হাকালুকির নানা জাতের তাজা মাছ আপনার ভোজনে তৃপ্তি দেবে। ভোজন বিলাসী পর্যটকরা হাকালুকির পারেই মাছ ভেজে রান্না করে তৃপ্তির ঢেকুর তুলেন।

সাথে আছে স্থানীয় ঘিলাছড়ার বিষমুক্ত নানা সবজি। পাবেন সিলেটের বিখ্যাত সাতকরা ও আনারস। হাকালুকি হাওরের পর্যটন ট্রান্সপোর্ট মালিক মুজিবুর রব চৌধুরী জানান, পর্যটকদের জন্য তার প্রমোদতরী সহ আছে স্পিড বোট, স্কেডিং বোট, নানা রকম ট্রলার। হাওর পর্যটকদের জন্য রয়েছে লাইফ জ্যাকেট সহ সাতারু নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

দিন দিন পর্যটক বাড়ার কারনে হাকালুকির পাশে মোকামবাজারে উপজেলা প্রশাসনের  উদ্যোগে পর্যটন স্পট তৈরীর প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান, সিএনএস মাঠ কর্মি হেলাল আহমেদ।

যে ভাবে আসবেন- যে কোনু জায়গা থেকে সিলেট শহরে এসে কদমতলি ও হুমায়ুন রশিস স্কয়ার থেকে বাস,লেগুনা সিএনজি তে যাবেন ফেঞ্চুগঞ্জ ফেরীঘাটে। সেখান থেকে সিএনজি, রিক্সায় মাইজগাও পরে আবার সিএনজি তে ঘিলাছড়া জিরো পয়েন্ট।  এখান থেকেই হাকালুকি হাওর শুরু। নিজস্ব গাড়ি হলে সিলেট শহর থেকে মাত্র এক ঘন্টার দূরত্ব।

জিরো পয়েন্টে ভাতের হোটেল নেই, খেতে হলে রান্না করে নিতে পারেন বা যাবার পথে ফেঞ্চুগঞ্জ, বা মাইজগাও থেকে খাবার কিনে নিতে হবে।

রান্না উপকরন সাথে নিলে জিরো পয়েন্টে রান্না করে খেতে পারেন আলাদা আনন্দ পাবেন।

আপনাদের ভ্রমন আনন্দময় ও নিরাপদ হোক। ধন্যবাদ।

লেখক: ফেঞ্চুগঞ্জ প্রতিনিধি, সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডট কম।

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : ১২৬ বার

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   পনিটুলায় শারদীয় দুর্গা পূজার নানা কর্মসুচী
  •   পূবালী ব্যাংকের ‘ম্যানেজার এন্ড হিজ জব’ শির্ষক কর্মশালা সম্পন্ন
  •   সন্ত্রাসী হামলায় আহত স্বাগত চৌধুরীর পাশে বদরুজ্জামান সেলিম
  •   তথ্য প্রযুক্তিতে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে গেছে: ড. জাফর ইকবাল
  •   সিলেটস্থ টাঙ্গাইল জেলা সমিতির আহ্বায়ক কমিটি গঠন
  •   রেবতী রমণ উচ্চ বিদ্যালয়কে সরকারীকরন করায় আনন্দ র‌্যালী
  •   রোহিঙ্গাদের উপর অমানবিক নির্যাতন বন্ধ কর: কমরেড সিকন্দর আলী
  •   জগন্নাথপুরে বজ্রপাতে স্কুলছাত্র সহ ২ জনের মৃত্যু
  •   সামাজিক মালিকানার মানবিক বিশ্ব গড়ে তুলুন: অধ্যাপক সিরাজুল
  •   মিয়ানমারে রোহিঙ্গা গণহত্যার প্রতিবাদে টুকেরবাজারে বিক্ষোভ সমাবেশ ও দোয়া
  •   সিলেট বিএমএ'র উদ্যোগে কেন্দ্রীয় বিএমএ’র নেতৃবৃন্দের সংবর্ধনা
  •   সাংবাদিক গোপাল বর্ধনের মায়ের মৃত্যুতে ইমজার শোক
  •   মৌলভীবাজারে পৌর কাউন্সিলরের উপর হামলায় বিক্ষোভ
  •   শারদীয় দুর্গা পূজা উপলক্ষ্যে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের নির্দেশনা
  •   প্রতিটি ধর্ম মানবতার কল্যাণ ও শান্তির কথা বলেছে: ড. নাজমানারা
  • সাম্প্রতিক ফিচার খবর

  •   রোডমার্চের নামে ভয়ংকর প্রতারণা!
  •   মানুষ মানুষের জন্য
  •   রোহিঙ্গারা কি বাঙালি?
  •   নারীর সর্বনাশে নারী
  •   মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি আর চুপ করে থাকবেন না
  •   ভাটির পুরুষ || শাকুর মজিদ
  •   এখনকার তরুণেরা প্রেম করছেন কম!
  •   বিভূতিভূষণ বন্দোপাধ্যায়: একজন নিভৃতচারী কথাশিল্পী
  •   সিলেট ইসকন মন্দিরে একদিন...
  •   'মুসলমান হিসেবে চোখের পানি ধরে রাখতে পারছি না'
  •   শেখ হাসিনা, নোবেল শান্তি পুরস্কার ও পরিকল্পিত অপপ্রচার!
  •   ভা‌লো থেকো নী‌তির রাজনী‌তিক সৈয়দ মহসীন অালী
  •   ডেল কার্নেগির স্মরণীয় ৭টি উক্তি
  •   রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান কোন পথে?
  •   আমাদের সেরা ইউনিভার্সিটিগুলোর শিক্ষক-কর্মকর্তারা কি করে?