হস্তরেখা বা কোষ্ঠী পাথর নয়, ভাগ্য বলে দেবে 'এক কাপ চা'

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৭-০১-০৯ ০০:২৮:৩৪

সভ্যতার প্রথমলগ্ন থেকেই মানুষ জানতে চেয়েছে আগামীকে। ভবিষ্যৎ জানার জন্য মানুষ যা করেছে, তার হিসাব নিতে বসলে মাথা খারাপ হওয়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে। সুদূর গ্রহতারা থেকে শুরু করে হাতের রেখা, কোনও কিছুকেই বাদ দেয়নি মানুষ। জ্যোতিষ, করকোষ্ঠী, ট্যারো কার্ডস ইত্যাদি তো রয়েছেই, তার উপরে যুগ যুগ ধরে এমন কিছু পদ্ধতি মানুষ ভাগ্য জানার জন্যে ব্যবহার করে এসেছে, যার কার্যকারণ বের করাটাই দুরূহ।

এমনই এক পদ্ধতি হল ‘ট্যাসিওগ্রাফি’। আপাতদৃষ্টিতে পদ্ধতিটি নেহাতই সরল। কিন্তু এর ব্যবহার করাটা কঠিন। খুঁটিয়ে দেখলে বোঝা যায়, ‘ট্যাসিওগ্রাফি’ শব্দটির মধ্যে রয়েছে আরবি ‘ট্যাসা’ শব্দটি, যার অর্থ হল ‘চা’। তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে গ্রিক ‘গ্রাফ’ শব্দটি, যার অর্থ ‘লিখন’। সেদিক থেকে ভাবলে, ট্যাসিওগ্রাফি এর অর্থ দাঁড়ায়— ‘চায়ের লিখন’। ট্যাসিওগ্রাফার কোনও ব্যক্তিকে এক কাপ চা পান করতে বলেন। চা পান করার পরে, চায়ের কাপে চা-পাতা পড়ে থাকে। সেই পড়ে থাকা চা-পাতার প্যাটার্ন দেখেই নাকি বলে দেওয়া হয় সেই ব্যাক্তির ভাগ্য।

আনুমানিক সপ্তদশ শতক থেকে ইউরোপে ট্যাসিওগ্রাফি এক জনপ্রিয় ভবিষ্যকথন পদ্ধতি হিসেবে আবির্ভূত হয়। কেবল চা নয়, কফি বা ওয়াইন সেডিমেন্টকে ঘিরেও শুরু হয় ট্যাসিওগ্রাফি। তবে চায়ের জনপ্রিয়তাই ছিল সর্বাধিক। কারণ ওই সময়ে ইউরোপে চায়ের জনপ্রিয়তা ক্রমবর্ধমান। আর চিন থেকে আগত এই পানীয়কে ঘিরে ইউরোপীয়দের কৌতূহলও তখন তুঙ্গে।

পরে থাকা চা-পাতার প্যাটার্ন থেকে ভাগ্য জানার পদ্ধতিকে সুগম করার জন্য তৈরি হতে শুরু করে বিচিত্রদর্শন সব কাপ। কোনওটির ভিতরে জ্যোতিষ-চিহ্ন, কোনওটিতে রাশিচক্র আবার কেনোটিতে তাসের ছবি ছাপা হতে শুরু করে। তৈরি হতে থাকে ট্যাসিওগ্রাফি-র নিজস্ব চিহ্ন সম্বলিত কাপও।

এই চিহ্নের ব্যাপারটা অবশ্যই কিছুটা গোলমেলে। পড়ে থাকা চা-পাতার প্যাটার্ন কখন সাপের মতো, কখন পাহাড়ের মতো, কখন বা তার মধ্যে দেখা যায় অন্য কোনও জন্তুর ছায়া। এর প্রত্যেকটিই এক একটি ট্যাসিওগ্রাফি-প্রতীক। এদের প্রত্যেকেরই মানে আলাদা। সাধারণ মানুষের পক্ষে একে বোঝা দুরূহ। কিন্তু মজার ব্যাপার এই যে, সেই ১৭ শতক থেকে আজ, এই দীর্ঘ কালপর্বে ট্যাসিওগ্রাফি নিয়ে পশ্চিমের কৌতূহল এক ইঞ্চিও কমেনি। এই মুহূর্তে ইন্টারনেটেও ট্যাসিওগ্রাফি-র রমরমা যথেষ্ট। ট্যারো বা সাধারণ জ্যোতিষের চাইতে নাকি অনেক বেশি কার্যকর এই চা-পাতার পাঠ।

কিন্তু আরও মজার ব্যাপার এই, ট্যাসিওগ্রাফি-কে কিন্তু একেবারেই পাত্তা দেননি হ্যারি পটার-সিরিজের রচয়িতা জে কে রাওলিং। গোটা সিরিজ জুড়ে তিনি মজা করে গিয়েছেন ট্যাসিওগ্রাফি নিয়ে।

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : ৩১৯ বার

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   সিলেটে ২০ শুল্ক কর্মকর্তাকে ‘বদলি’
  •   কমলগঞ্জে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ: নারীসহ আহত ৬
  •   লিডিং ইউনিভার্সিটিতে চলছে সোশ্যাল সার্ভিস ক্লাবের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতা
  •   কমলগঞ্জে মণিপুরী মুসলিম টিচার্স ফোরামের মতবনিমিয় সভা
  •   এশিয়ান আরচ্যারী চ্যাম্পিয়নশীপ ঢাকা-২০১৭ উপলক্ষে সিলেটে র‌্যালী
  •   ঈদ-এ মিলাদুন্নবী উপলক্ষে আনন্দ মিছিল অনুষ্ঠিত
  •   ‘বিদ্যুতের দামে জনজীবনে প্রভাব পড়বে না’
  •   ‘আওয়ামী লীগ আবারও সরকার গঠন করবে’
  •   শহীদ জিয়ার ছোট ভাইয়ের ইন্তেকালে সিলেট জেলা বিএনপির শোক
  •   সিলেটে বিপুল পরিমাণ অবৈধ সিগারেট জব্দ
  •   আজ থেকে বিপিএল চট্টগ্রামে
  •   বারী সিদ্দিকীর জানাজা অনুষ্ঠিত
  •   যুক্তরাজ্যে বদরুজ্জামান সেলিমের সমর্থনে মতবিনিময়
  •   দক্ষিণ সুরমায় শশুড়বাড়ি থেকে গৃহবধূ নিখোঁজ
  •   বলিউডে পুরুষেরাও যৌন হয়রানির শিকার
  • সাম্প্রতিক ফিচার খবর

  •   জেনে নিন জন্মতারিখ কী বলে আপনার সম্পর্কে
  •   কাদের-ফখরুলদের কীভাবে জানতেন বঙ্গবন্ধু?
  •   প্রিয় শিক্ষামন্ত্রী! প্লিজ, অপ্রিয় হলেও শুনুন
  •   ব্রি‌টিশ বাংলা‌দেশী প্রজ‌ন্মের চো‌খে জ‌ঙ্গিবাদ
  •   ‘সিলেটে বিএনপি কোনো ফ্যাক্টর ছিলো না’
  •   মাঝ সমুদ্রে রহস্যময় প্রাচীন শহর
  •   খামার করে ভাগ্যের চাকা ঘুরে গেছে নাজমুলের
  •   বাবা নেই! মা মুমূর্ষু!
  •   মধ্যপ্রাচ্য কি ধ্বংসের শেষ প্রান্তে?
  •   নামগুলো হজম করতে হবে
  •   আওয়ামী লীগ কি তার অতীত ভুলে গেছে?
  •   স্মৃতি অমলিন : নুর উদ্দিন লোদি
  •   কিয়ামতে সুন্দর চরিত্রের অধিকারীরা হবেন রসুল (সা.)-এর প্রিয়
  •   একটি বিয়েতে রাষ্ট্রপতির স্ত্রী রাশিদা হামিদ
  •   ভিসির হাতে ঝাড়ু : শিক্ষকদের লাথি-ঘুষি