সম্পর্কের গোপন রহস্য জানিয়েছেন মনোবিজ্ঞানীরা!

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৭-০১-০৬ ০০:১৯:৫৪

মনোবিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, যে কোন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে দু'বার ভাবা দরকার। আর সম্পর্কের বেলায় তো একাধিক বার না ভেবে কিছু করা মোটেই ঠিক হবে না। সম্পর্কে টিকিয়ে রাখতে সমঝোতা দরকার। কিছু জায়গায় সমঝোতা না করলে, ভাঙনের সম্ভাবনা তৈরি হয়। কিন্তু কিছু বিষয় একেবারেই বর্জন করা উচিত। ওই বিষয়গুলিকে সহ্য করা মানে, সম্পর্কটা আর সম্পর্ক থাকে না। এ ব্যাপারে আরো জেনে নিন-

* অসম্মানজনক ভাষা
সব সময় ব্যঙ্গ করা, নীচু করার চেষ্টা, অযথা অপমান করার প্রবণতা যদি সঙ্গী বা সঙ্গিনীর থাকে, তাহলে এই স্বভাব সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে বদলাতে হবে। এটা অসহনীয়। একটা সুস্থ সম্পর্কের অন্যতম ভিত্তি হল একে অপরকে শ্রদ্ধা ও সম্মান। যে সম্পর্কে সম্মান নেই, সেই সম্পর্ক কোন সম্পর্কই নয়। 

* সব কাজে নিয়ন্ত্রণ
একটা সুস্থ সম্পর্কে স্বতঃস্ফূর্ততা খুব জরুরি। মনোবিদ অ্যান্দ্রেয়া বনিয়ো জানাচ্ছেন, নিয়ন্ত্রণ ভালো, কিন্তু সঙ্গী বা সঙ্গিনী যদি সব সময়ই সব কিছুতেই কন্ট্রোল করতে বলেন, তাহলে বিষয়টি বিরক্তিকর হয়ে যায়। তখন সঙ্গী বা সঙ্গিনীকে এড়িয়ে যাওয়ার প্রবণতা তৈরি হয়। এরকম হলে, সহ্য না করাই ভালো।

* বিশ্বাসভঙ্গ
বিশ্বাস এমন একটি বস্তু, যা একবার ভঙ্গ হলে জোড়া খুব মুশকিল। সম্পর্কের মূল ভিত্তিও বিশ্বাস। তাই সম্পর্কে একে অপরের প্রতি বিশ্বাস রাখা ও বিশ্বাসকে যত্নে লালন করা খুবই জরুরি। যদি দেখেন, সঙ্গী বা সঙ্গিনী বার বার বিশ্বাসে আঘাত হানছে, তাহলে আর সময় নষ্ট করা উচিত নয় বলেই জানাচ্ছেন মনোবিদরা।

* যত্নশীল
একে অপরের প্রতি যত্ন নেওয়া, একে অপরের সমস্যা নিয়ে আলোচনা করা সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার অন্যতম। যদি দেখান, সঙ্গী বা সঙ্গিনী আপনাকে নিয়ে একেবারেই ভাবিত নয়, সব সময় নিজেরটা ভাবেন, তাহলে সহ্য করা ঠিক নয়। কারণ যত সহ্য করবেন, তত কষ্ট হবে।

* অবহেলা করা
সঙ্গী বা সঙ্গিনীকে সব সময় আগে গুরুত্ব দেওয়া দরকার। মনোবিদরা বলছেন, সঙ্গী বা সঙ্গিনীকে অবহেলা করা, বিশেষ গুরুত্ব না দেওয়া- এই সবই কিন্তু সম্পর্ককে বিষ করে তোলে। অতএব এ সব সহ্য করে একটা সম্পর্ককে টিকিয়ে রাখা মানে, নিজেকেই কষ্ট দেওয়া।
 
* আবেগের অভাব
আবেগ ছাড়া বেগ থাকে না। জীবন থেমে যায়। তাই আবেগকে উপেক্ষা করা ঠিক নয়। বেশি আবেগপ্রবণ ঠিক নয়, আবার আবেগহীন হওয়াও ঠিক নয়। সম্পর্কে খুব জরুরি। একে অপরের প্রতি মনের কথাকে সম্মান করা, আবেগের সঙ্গে আলোচনা করা দরকার। আবেগহীন সম্পর্ক না রাখাই ভালো।

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : ১৯০ বার

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   মানবাধিকার কমিশন সিলেট পূর্ব আঞ্চলিক কমিটি গঠন
  •   ববি হাজ্জাজের নতুন দল এনডিএমে শাফিন, তাজিন
  •   জনগণের জান মালের নিরাপত্তা দেয়া পুলিশের দায়িত্ব: ওসি দেলওয়ার
  •   গোলাপগঞ্জে লেগুনা থেকে ৩০০ বোতল ফেনসিডিল আটক
  •   বিয়ানীবাজারে কেন্দ্র কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম
  •   প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে পুরস্কার নিলেন সিলেটের ব্যাডমিন্টন তারকা মৌলি
  •   বিশ্ব নৃত্য দিবস উপলক্ষে সিলেট শিল্পকলার নৃত্য প্রতিযোগিতা
  •   ‘ইলেকশন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের সুদক্ষ কারিগর’ সিলেটের এডিসি শহিদ!
  •   বিয়ানীবাজার পৌর নির্বাচন: সব কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ
  •   ফেঞ্চুগঞ্জের বিরল রোগাক্রান্ত দুই ছাত্রীর চিকিৎসা শুরু, সাহায্য আহবান
  •   বড়লেখায় গলায় ফাঁস দিয়ে কলেজ ছাত্রের আত্মহত্যা
  •   কমলগঞ্জে কারের ধাক্কায় এক ব্যক্তি নিহত
  •   বড়লেখায় সড়কের উপর গাছ পড়ার ৩ ঘন্টা পর যান চলাচল ব্যাহত
  •   কমলগঞ্জে জীবন দিয়ে প্রায়শ্চিত্ত পিতা হন্তারক ছেলের!
  •   ‘সচিবের শান্তনাবানীর বদলে রক্তচক্ষুরবানী’
  • সাম্প্রতিক ফিচার খবর

  •   গল্প: বাঁধ ভাঙ্গার আওয়াজ
  •   হাওরবাসীর কি হবে? -উপর ওয়ালা জানেন!
  •   ব্রিটেনের রাণীর ৬৫ বছরের অজানা তথ্য!
  •   আলো ছড়াচ্ছে শাবিপ্রবির এফইটি বিভাগ
  •   কত কৃষক গ্রাম ছেড়ে নিরুদ্দেশ হবে!
  •   ইসলামী ব্যাংকে আকর্ষণীয় চাকরি
  •   বাংলা নতুন বছরে ক্যাম্পাস নিয়ে তরুণ প্রজন্মর প্রত্যাশা অনেক ভাবনা ভিন্ন
  •   নববর্ষে বাংলাভাষীদের জন্য গুগলের উপহার
  •   যেভাবে এল বাংলা নববর্ষ
  •   পল কনেটের জুতা :: রিয়াজ উদ্দীন ইসকা
  •   খাবার থেকে ফরমালিন দূর করবেন যেভাবে
  •   ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস বাঙালি জাতির জীবনে এক অবিস্মরণীয় দিন
  •   প্রধানমন্ত্রী আর সাংবাদিকের বক্সিং লড়াই
  •   রাষ্ট্রীয় ইসলামী জলসা অার মঙ্গল শোভাযাত্রার ট্রামকার্ড
  •   ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে যা করবেন