সম্পর্কের গোপন রহস্য জানিয়েছেন মনোবিজ্ঞানীরা!

সিলেটভিউ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ২০১৭-০১-০৬ ০০:১৯:৫৪

মনোবিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, যে কোন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে দু'বার ভাবা দরকার। আর সম্পর্কের বেলায় তো একাধিক বার না ভেবে কিছু করা মোটেই ঠিক হবে না। সম্পর্কে টিকিয়ে রাখতে সমঝোতা দরকার। কিছু জায়গায় সমঝোতা না করলে, ভাঙনের সম্ভাবনা তৈরি হয়। কিন্তু কিছু বিষয় একেবারেই বর্জন করা উচিত। ওই বিষয়গুলিকে সহ্য করা মানে, সম্পর্কটা আর সম্পর্ক থাকে না। এ ব্যাপারে আরো জেনে নিন-

* অসম্মানজনক ভাষা
সব সময় ব্যঙ্গ করা, নীচু করার চেষ্টা, অযথা অপমান করার প্রবণতা যদি সঙ্গী বা সঙ্গিনীর থাকে, তাহলে এই স্বভাব সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে বদলাতে হবে। এটা অসহনীয়। একটা সুস্থ সম্পর্কের অন্যতম ভিত্তি হল একে অপরকে শ্রদ্ধা ও সম্মান। যে সম্পর্কে সম্মান নেই, সেই সম্পর্ক কোন সম্পর্কই নয়। 

* সব কাজে নিয়ন্ত্রণ
একটা সুস্থ সম্পর্কে স্বতঃস্ফূর্ততা খুব জরুরি। মনোবিদ অ্যান্দ্রেয়া বনিয়ো জানাচ্ছেন, নিয়ন্ত্রণ ভালো, কিন্তু সঙ্গী বা সঙ্গিনী যদি সব সময়ই সব কিছুতেই কন্ট্রোল করতে বলেন, তাহলে বিষয়টি বিরক্তিকর হয়ে যায়। তখন সঙ্গী বা সঙ্গিনীকে এড়িয়ে যাওয়ার প্রবণতা তৈরি হয়। এরকম হলে, সহ্য না করাই ভালো।

* বিশ্বাসভঙ্গ
বিশ্বাস এমন একটি বস্তু, যা একবার ভঙ্গ হলে জোড়া খুব মুশকিল। সম্পর্কের মূল ভিত্তিও বিশ্বাস। তাই সম্পর্কে একে অপরের প্রতি বিশ্বাস রাখা ও বিশ্বাসকে যত্নে লালন করা খুবই জরুরি। যদি দেখেন, সঙ্গী বা সঙ্গিনী বার বার বিশ্বাসে আঘাত হানছে, তাহলে আর সময় নষ্ট করা উচিত নয় বলেই জানাচ্ছেন মনোবিদরা।

* যত্নশীল
একে অপরের প্রতি যত্ন নেওয়া, একে অপরের সমস্যা নিয়ে আলোচনা করা সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার অন্যতম। যদি দেখান, সঙ্গী বা সঙ্গিনী আপনাকে নিয়ে একেবারেই ভাবিত নয়, সব সময় নিজেরটা ভাবেন, তাহলে সহ্য করা ঠিক নয়। কারণ যত সহ্য করবেন, তত কষ্ট হবে।

* অবহেলা করা
সঙ্গী বা সঙ্গিনীকে সব সময় আগে গুরুত্ব দেওয়া দরকার। মনোবিদরা বলছেন, সঙ্গী বা সঙ্গিনীকে অবহেলা করা, বিশেষ গুরুত্ব না দেওয়া- এই সবই কিন্তু সম্পর্ককে বিষ করে তোলে। অতএব এ সব সহ্য করে একটা সম্পর্ককে টিকিয়ে রাখা মানে, নিজেকেই কষ্ট দেওয়া।
 
* আবেগের অভাব
আবেগ ছাড়া বেগ থাকে না। জীবন থেমে যায়। তাই আবেগকে উপেক্ষা করা ঠিক নয়। বেশি আবেগপ্রবণ ঠিক নয়, আবার আবেগহীন হওয়াও ঠিক নয়। সম্পর্কে খুব জরুরি। একে অপরের প্রতি মনের কথাকে সম্মান করা, আবেগের সঙ্গে আলোচনা করা দরকার। আবেগহীন সম্পর্ক না রাখাই ভালো।

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : ১৬৯ বার

শেয়ার করুন

আপনার মতামত দিন

সর্বশেষ খবর

  •   জলের গানের ‘বকুল ফুলে’ মাতলেন সিলেটের দর্শকরা
  •   খেলাধুলার মাধ্যমে সন্তানদের মাদক থেকে দূরে রাখা যায়: আসাদ উদ্দিন
  •   ভাষা দিবস উপলক্ষ্যে মোগলাবাজারে ভলিবল টুর্নামেন্ট সম্পন্ন
  •   বিল গেটস সম্পর্কে অজানা ১২ তথ্য!
  •   নেতার লালসার শিকার মন্ত্রীর মেয়ে!
  •   ফলে 'রাসায়নিক বিষ' চেনার সহজ উপায়
  •   'এখনও বেঁচে আছেন লাদেন'
  •   নগ্নতা নিয়ে যা বললেন মোনালি
  •   প্রকাশ্য অনুষ্ঠানে পুনম পান্ডের বিতর্কিত কর্মকাণ্ড!
  •   অভিনেত্রীকে টিভি চ্যানেলের কর্মকর্তার কুপ্রস্তাব, অতঃপর...
  •   রেকর্ডের পথে ‘হাফ গার্লফ্রেন্ড’
  •   প্রেমিকার কাঁধে হাত, জরিমানা ২০০ টাকা!
  •   গুজব, হিংসা ঠেকাতে কড়াকড়ি ফেসবুকে
  •   মহাকাশে ভেসে বেড়াচ্ছে মানুষের তৈরি ‘তারা’!
  •   হোয়াটসঅ্যাপ থেকে মুছে যাবে ছবি ও ভিডিও!
  • সাম্প্রতিক ফিচার খবর

  •   একুশ আসে ফিরে ফিরে
  •   ভাষা আন্দোলনের মর্যাদা ও বাস্তবতা
  •   রত্নগর্ভা ‘আমার মা’
  •   ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সে চাকুরির সুযোগ
  •   যে কারণে পাখিদের দাঁত থাকে না, জানাচ্ছে গবেষণা
  •   ‘স্মৃতির পালে লাগলো হাওয়া’ গল্পগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন
  •   'ডুব' নিয়ে কিছু কথা
  •   প্রশ্নপত্রের ভুলে ক্ষতিগ্রস্থ শিক্ষার্থীরা, দায়ভার কার?
  •   বইমেলায় বেরিয়েছে মাইস্লাম রাজেশের অনুদিত কাব্যগ্রন্থ স্বর্ণকমল
  •   সীমান্তঘেষা ভারত-ভুটানের ভ্রমণকাহিনী ‌'উইথআউট বর্ডার'
  •   দাদা'র জন্য ভালবাসা
  •   আহ্ পাকিস্তান: মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক রাজনৈতিক উপন্যাস
  •   ‘নেটওয়ার্কের বাইরে’ জনি!
  •   নির্বাচিত বব ডিলান: গীতিকবিতা-আত্মজীবনী-সাক্ষাৎকার
  •   ৪০ জন রানীর সঙ্গে গোসল করাটা ছিল এই রাজার প্যাশন!